ঢাকা, শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ১৬ মাঘ ১৪২৯, ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ফের নিম্নচাপ, থাকবে সপ্তাহ জুড়ে বৃষ্টি



ফের নিম্নচাপ, থাকবে সপ্তাহ জুড়ে বৃষ্টি

বঙ্গোপসাগরে আরও একটি নিম্নচাপ সৃষ্টির সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। আগামী ২০ থেকে ২৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে নিম্নচাপটি বাংলাদেশ ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ওপর দিয়ে অতিক্রম করার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। ফলে আগামী সপ্তাহেও টানা ৬ দিন বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনার রয়েছে বলে জানিয়েছে বিশ্বের প্রধান আবহাওয়া পূর্বাভাস মডেলগুলো। পূর্বাভাস মডেলগুলোর তথ্য বিশ্লেষণ করে এ তথ্য জানিয়েছেন কানাডার সাসক্যাচুয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ের আবহাওয়া ও জলবায়ু গবেষক মোস্তফা কামাল পলাশ।

মোস্তফা কামাল পলাশ বলেন, 'সম্ভব্য এ নিম্নচাপটিও উত্তর-মধ্য বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হয়ে ভারতের উড়িষ্যা ও পশ্চিমবঙ্গের মধ্যবর্তী কোনো স্থানের উপকূল দিয়ে ভারতের স্থলভাগে প্রবেশের সম্ভাবনা নির্দেশ করছে আমেরিকা ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের আবহাওয়া পূর্বাভাস মডেল।'

'ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের আবহাওয়া পূর্বাভাস মডেলের সর্বশেষ পূর্বাভাস অনুযায়ী, সম্ভব্য এ নিম্নচাপটি ১৯ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হয়ে পশ্চিমদিকে অগ্রসর হয়ে ২১ সেপ্টেম্বর ভারতের উড়িষ্যা ও পশ্চিমবঙ্গের মধ্যবর্তী স্থানের উপকূল দিয়ে ভারতের স্থলভাগে প্রবেশ করে উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে', বলেন তিনি।

মোস্তফা কামাল পলাশ আরও বলেন, পক্ষান্তরে আমেরিকান মডেল অনুযায়ী, নিম্নচাপটি ২০ সেপ্টেম্বর ভারতের আন্দামান ও নিকবার দ্বীপের পশ্চিমে মিয়ানমার সংলগ্ন পূর্ব বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হয়ে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে ২১ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উপকূল দিয়ে স্থলভাগে প্রবেশের সম্ভাবনা রয়েছে। সম্ভব্য এ নিম্নচাপটির প্রভাবে আবারও ৬ দিন দেশব্যাপী বৃষ্টির প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানান তিনি।

এ গবেষক বলেন, নিম্নচাপ সৃষ্টির প্রথম ২ দিন, অর্থাৎ ১৯ ও ২০ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম, পার্বত্য চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার জেলায় হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। ২০ সেপ্টেম্বর বরিশাল ও খুলনা বিভাগের উপকূলীয় জেলাগুলোতে মাঝারি থেকে ভারী বর্ষণের সম্ভাবনা রয়েছে। ২১, ২২ ও ২৩ সেপ্টেম্বর আবারও দেশব্যাপী মাঝারি থেকে ভারী এবং ২৪ ও ২৫ সেপ্টেম্বর হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা নির্দেশ করেছে প্রধান আবহাওয়া পূর্বাভাস মডেলগুলো।

'নিম্নচাপটির কারণে সবচেয়ে ভারী বৃষ্টির (২৪ ঘণ্টায় প্রায় ২০০ মিলিমিটার) সম্ভাবনা রয়েছে ২২ সেপ্টেম্বর বরিশাল ও খুলনা বিভাগের জেলাগুলোতে। যেহেতু নিম্নচাপটি এ ২ বিভাগের ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, তাই সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে খুলনা ও বরিশাল বিভাগের জেলাগুলোতে', বলেন তিনি।

মোস্তফা কামাল পলাশ বলেন, আগামী সপ্তাহের সম্ভাব্য নিম্নচাপটিও ২৫ সেপ্টেম্বরের অমাবস্যার মাত্র ২ থেকে ৩ দিন আগে সংগঠিত হওয়ার সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে। নিম্নচাপের কেন্দ্র যদি পূর্ব নির্দেশিত পথই অনুসরণ করে, তাহলে সম্ভব্য নিম্নচাপটির কারণে বরিশাল ও খুলনা বিভাগের উপকূলীয় জেলাগুলোতে জোয়ারের পানি স্বাভাবিকের চেয়ে ৩ থেকে ৬ ফুট বেশি উচ্চতায় উপকূলীয় এলাকাগুলো প্লাবিত হওয়ার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ একেএম নাজমুল হক বলেন, গত ৯ সেপ্টেম্বর সৃষ্ট লঘুচাপটির প্রভাব এখন আর বাংলাদেশের ওপর তেমন নেই। তবে, লঘুচাপটি এখনো সুস্পষ্টভাবে সক্রিয় ও বিপরীত দিকে প্রবাহমান। এ লঘুচাপটির একটি বর্ধিত অংশ আবার ঘনীভূত হয়ে আগামী ১৯ থেকে ২০ সেপ্টেম্বরে ভারতের স্থলভাগে প্রবেশ করতে পারে। এর প্রভাবে বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চল ও দেশের মধ্যাঞ্চলে বৃষ্টিপাত হতে পারে।

কী পরিমাণ বৃষ্টিপাত হতে পারে, জানতে চাইলে এ আবহাওয়াবিদ বলেন, এত আগে থেকেই সেটা বলা যাচ্ছে না। এত আগে বললে সেটা সঠিক নাও হতে পারে। আমরা সাধারণত ২৪ ঘণ্টায় ২ বার আবহাওয়ার পূর্বাভাস দেই।


   আরও সংবাদ