ঢাকা, সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ৯ আশ্বিন ১৪২৯, ২১ শাওয়াল ১৪৪৩

পাল্টে যাচ্ছে রেমিটেন্সের হিসেব



পাল্টে যাচ্ছে রেমিটেন্সের হিসেব

ঈদকে কেন্দ্র ক‌রে তৈরি হয় বাড়তি চাহিদা। পরিবার-পরিজনের বাড়তি খরচের কথা মাথায় রেখে বাড়তি চাহিদার যোোন দিতে নিয়মিতের অতিরিক্ত অর্থ পাঠায় প্রবাসীরা। এবারো দু হাত খুলে অর্থ পাঠাচ্ছে তারা। এতে করে পাল্টে যাচ্ছে প্রবাসী আয় বা রেমিটেন্সের হিসেব নিকেশ।

কেন্দ্রীয় ব্যাং‌কের তথ্য বল‌ছে, চলতি এ‌প্রিল মাসের ১৩ দিনে ৯২ কো‌টি ৭৫ লাখ মার্কিন ডলারের রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। বাংলাদেশি মুদ্রায় বর্তমান বিনিময় হার হিসাবে (প্রতি ডলার ৮৬ টাকা ২০ পয়সা) এই অঙ্ক প্রায় ৮ হাজার কোটি টাকা। চলমান ধারা অব্যাহত থাকলে মাসের শেষে প্রবাসী আয়ের পরিমাণ ২০০ কোটি ডলার ছা‌ড়ি‌য়ে যাবে বলে আশা করছেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তারা।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সবশেষ তথ্য বলছে, চলতি মাসের এই ১৩ দিনে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন পাঁচ বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে রেমিট্যান্স এসেছে ১৮ কোটি ৯০ লাখ মার্কিন ডলার। বেসরকারি ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ৭১ কোটি ৬২ লাখ মার্কিন ডলার। বিদেশি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে ৩৩ লাখ মার্কিন ডলার। বিশেষায়িত ব্যাংকে এসেছে এক কোটি ৮৮ লাখ মার্কিন ডলার।

এর আগে গত মার্চ মাসে প্রবাসীরা দেশে রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন ১৮৬ কোটি ডলার। যা আগের মাসের চেয়ে ২৪ শতাংশ বা ৩৬ কোটি ৫৫ লাখ ডলার বেশি। গত ফেব্রুয়ারিতে রেমিট্যান্স এসেছিল ১৪৯ কোটি ডলার। তবে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারির তুলনায় মার্চে রেমিট্যান্স বাড়লেও গত বছরের একই সময়ের তুলনায় কমেছে। গত বছরের মার্চে রেমিট্যান্স এসেছিল ১৯১ কোটি ৯ লাখ ডলার।

প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরে ৯ মাসে (জুলাই-মার্চে) দেশে রেমিট্যান্স এসেছে এক হাজার ৫২৯ কোটি ৮৫ লাখ ডলার (প্রতি ডলার ৮৬ টাকা ২০ পয়সা ধরে বাংলাদেশি মুদ্রায় এক লাখ ৩১ হাজার ৮৭৩ কোটি টাকা)। এই অঙ্ক আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ৩৩০ কোটি বা প্রায় ১৮ শতাংশ কম। ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে রেমিট্যান্স এসেছিল এক হাজার ৮৫৯ কোটি ৮২ লাখ ডলার।

২০১৯ সালের ১ জুলাই থেকে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সে ২ শতাংশ হারে প্রণোদনা দিচ্ছে সরকার। অর্থাৎ কোনো প্রবাসী ১০০ টাকা দেশে পাঠালে তার সঙ্গে আরও ২ টাকা যোগ করে মোট ১০২ টাকা পাচ্ছেন সুবিধাভোগী।


   আরও সংবাদ